স্থানীয় সরকারের পৌর প্রশাসনকে শক্তিশালী ও গতিশীল করার জন্য চেতণার উন্মেষ ঘটানোর প্রচেষ্টা

বাপৌসস আহবান


bpsa-monoবাংলাদেশ পৌর সচিব এসোসিয়েশন (BPSA) -এর

আহবান

প্রিয় পৌর সচিব ভাই ও বোনেরা,

বাংলাদেশ পৌর সচিব এসোসিয়েশন(BPSA) বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাসী একটি অরাজনৈতিক পেশাজীবি সংগঠন। প্রায় দু’শ বছরের প্রশাসনিক ঐতিহ্যের ধারক,সভ্যতা বিকাশের সূতিকাগার ও আধুনিক সমাজ বিণির্মানের অধিক্ষেত্র-পৌরসভা প্রশাসনে সচিবগন জনমানুষের সেবা ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে স্থানীয় নেতৃত্বের পাশাপাশি নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। স্বাধীনতার পর পৌরসভার সংখ্যা,কাজের পরিধি ও অধিক্ষেত্র ক্রমাগতভাবে বিস্তৃত ও বর্ধিত হয়ে চললেও কর্মক্ষেত্রে পৌর সচিবগন চরমভাবে অবহেলিত ও অবনমিত হচ্ছেন। বিভিন্ন স্বার্থান্বেষী মহলের ধারাবাহিক ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের কবলে পড়ে কর্মক্ষেত্রে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছেন। বেতন,পদমর্যাদা ও চাকুরীগত অন্যান্য সুযোগ সুবিধা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অবমূল্যায়ন ও বৈষম্যের শিকারে পরিণত করা হয়েছে। এ অবস্থা আর চলতে দেয়া যায় না। বিগত সরকারের আমলে সৃষ্ট এ সকল সমস্যা বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকারের গোচরীভূত করে যৌক্তিকভাবেই এসবের সুষ্ঠু সমাধানে পৌঁছুতে পারবো বলে আমরা বিশ্বাস করি।

প্রিয় সহকর্মী ভাই ও বোনেরা,

লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে,একটি বিশেষ মহলের ইঙ্গিতে পৌর সচিবগণের মাঝে নানারকম অপপ্রচার চালিয়ে বিভেদ ও হানাহানি সৃষ্টির অসাধু প্রচেষ্টা চলছে। শক্ত হাতে এসব মোকাবেলা করতে হবে। এজন্যে সর্বাগ্রে প্রয়োজন সুদৃঢ় ঐক্য। নিজেদের মাঝে উদ্ভু্ত সকল সমস্যা পারস্পরিক আস্থা ও সমঝোতার মনোভাব নিয়ে সমাধান করতে হবে। অন্যদিকে সরকারের নিকট হতে আমাদের দীর্ঘদিনের পুঞ্জীভূত দাবীগুলো আদায় করতে হলে নেতৃত্বের হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। সকলের সার্বক্ষনিক সমর্থন ও সহযোগীতা অব্যাহত রাখতে হবে।

সু্প্রিয় সহকর্মীবৃন্দ,

আপনাদের প্রাণঢালা ধন্যবাদ। পরিপূর্ণ আস্থা ও গভীর বিশ্বাস নিয়ে কার্যনির্বাহী কমিটির নতুন নেতৃত্ব গড়ে তুলতে আপনাদের আন্তরীকতা,পরিশ্রম,প্রজ্ঞা ও কষ্টসাধ্য অংশগ্রহণ সত্যিই প্রশংসনীয়। এ ধারা অব্যাহত থাকলে অবশ্যই আমরা অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌছুঁতে পারবো ইনশাআল্লাহ।

প্রিয় ভাই ও বোনেরা,

পৌর সচিবগণের বক্ষমান যেসব দাবীগুলো আদায়ের জন্য ভবিষ্যৎ কর্মসূচী বেগবান করতে হবেঃ

 ১. স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এ সচিব পদের আইনী অবস্থান সুরক্ষা।

 ২. সচিব পদের পদমর্যাদা আইন অনুযায়ী পূণঃর্মূল্যায়ন ও যথাযথ পূণঃনির্ধারন করে তদানুযায়ী চাকুরী বিধিমালা ও কার্য বিধিমালার সংশ্লিষ্ট বিধান সমূহ সংশোধণ।

 ৩. সচিব পদের বেতনক্রম আইন সম্মত ভাবেই পূণঃনির্ধারন করে যথাযথ পর্যায়ে উন্নীত করতে হবে।

 ৪. সচিবের প্রশাসনিক দায়িত্ব বিধিভূক্ত করে তা কার্য বিধিমালায় অন্তর্ভূক্তকরণ।

[যেমনঃ সচিবের প্রশাসনিক দায়িত্ব-(১) পৌরসভার যাবতীয় দাপ্তরীক কাজকর্ম সুচারুভাবে সম্পাদনের জন্য সচিব মেয়রের নিকট দায়ী থাকবেন; (২) পৌরসভার সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারী মেয়রের সার্বিক নিয়ন্ত্রনে সচিবের নিকট দায়ী থাকবেন এবং তাঁর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে তাদের কাজকর্ম পরিচালনা করবেন]

 ৫. পৌরসভার সাংগঠনিক কাঠামোয় জন-প্রতিনিধির পদ/পদগুলোর পর কর্মকর্তা ধাপে প্রশাসনিক প্রধান (সর্বস্তনিক) সচিব পদের নিম্নে অপর সকল পদের জন্য নতুন করে স্তরবিণ্যাস দ্বারা তা সংশোধন করণ।

[সে ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন স্তর শাখা‘এবং উপরে ‘অধিশাখা’বা সর্বোচ্চ ‘অনুবিভাগ’থাকতে পারে]

 ৬. নিয়মিত দেশে বিদেশে উপযুক্ত ও উন্নত মানের প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করতে হবে।

 ৭.সচিব এর শূন্য পদে সচিব ব্যতীত অন্য কোন কর্মকর্তাকে ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব প্রদান করা যাবে না। সেক্ষেত্রে পার্শ্ববর্তী পৌরসভার সচিবকে এ দায়িত্ব প্রদান করতে হবে।

 ৮. স্থানীয় সরকার বিভাগের মাননীয় মন্ত্রী বা সচিব মহোদয়ের সভাপতিত্বে প্রতি বছর কমপক্ষে দুবার পৌরসভা সচিবগণের মতবিণিময় সভা অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করতে হবে।

 ৯. কর্মক্ষেত্রে পৌর সচিবগণের আবাসিক সমস্যার স্থায়ী সমাধান করতে হবে এবং সকল প্রকার লজিস্টিক সাপোর্ট প্রদান করতে হবে।

 ১০. সময়মত পদোন্নতি,সিলেকশন গ্রেড ইত্যাদি চাকুরীগত প্রাপ্য সুবিধাদি প্রদানের ক্ষেত্রে অহেতুক বিলম্ব ও খামখেয়ালীপনা বন্ধের কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। পদোন্নতি আটকে রাখা যাবেনা।

 ১১. বিসিএস(সমবায়) এর ন্যায় ‘বিসিএস(স্থানীয় সরকার)’ক্যাডার গঠন এবং পৌর সচিব পদকে এ ক্যাডারের অন্তর্ভূক্ত করে পি.এস.সি’র মাধ্যমে এ পদে কর্মকর্তা নিয়োগের ব্যবস্থা করতে হবে।

 ১২. বিভিন্ন প্রকল্পের আড়ালে পৌর প্রশাসনে এলজিইডি’র অনাহুত হস্তক্ষেপ এবং স্বার্থান্বেষণ, বিকৃতি, বিভ্রান্তি ও জটিলতা সৃষ্টির পাঁয়তারা বন্ধের দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

 ১৩. বাংলাদেশ পৌর সচিব এসোসিয়েশনের উন্নয়ন ও কল্যাণ তহবিলে সরকারী অনুদান প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ।

 ১৪. পৌরসভার সকল আইন ও বিধি-বিধান প্রণয়নকালে পৌর সচিবগনের মতামত গ্রহণ ও এতদসংক্রান্ত কমিটিসমূহে তাঁদের প্রতিনিধি অন্তর্ভূক্ত করণ।

 ১৫. কেন্দ্রীয় তহবিল গঠনের মাধ্যমে পৌরসভার সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের পেনশন প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

 সুপ্রিয় ভাই ও বোনেরা,

যুগের চাহিদায় ভিশন ২০২১ অর্জন ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে আমরা উদ্দীপ্ত। আসুন,আমরা সকলে পেশার মানোন্নয়নে এবং আমাদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে ঐক্যবদ্ধ হই। আপনাদের সার্বক্ষনিক সমর্থন ও সহযোগীতা বরাবর ও অবিরাম অব্যাহত থাকবে-এটাই আমাদের কাম্য। পরিশেষে বাংলাদেশ পৌর সচিব এসোসিয়েশনের নতুন কার্যনির্বাহী কমিটির পক্ষ থেকে আপনাদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও  অভিনন্দন।

খোদা হাফেজ।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: